free web tracker

শেয়ার করুন:

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আজ ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস। জাতি আজ মহান এই দিনটিকে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করছে। ১৯৭১ সালের এই দিনে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী পরাজয় বরণ করেছিলো। দেশের বিজয় অর্জন হয়েছিল আজকের এই দিনে।

victory-day

লক্ষ কোটি মানুষের আত্মত্যাগের মাধ্যমে আমরা পেয়েছি একটি স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র বাংলাদেশ। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীনতা ঘোষণার মধ্যদিয়ে যে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ শুরু হয়, তার ঠিক ৯ মাস পর ১৬ ডিসেম্বর হানাদার বাহিনীর পরাজয়ের মধ্যদিয়ে আমরা বিজয় অর্জন করেছিলাম। সেই থেকে আমরা স্বাধীন একটি রাষ্ট্র, আমরা পেয়েছি একটি পতাকা।

এমনি একটি দিনের প্রতীক্ষায় কেটেছিল বাঙালির হাজারো বছর। বহু কাঙ্ক্ষিত সেই দিনটির দেখা মিলেছিল ইতিহাসের পাতায় যেনো রক্তিম আখরে লেখা এক রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের শেষে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর।

ঢাকার ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) এদিনে বর্বর পাকিস্তানী বাহিনী হাতের অস্ত্র ফেলে মাথা নিচু করে দাঁড়িয়েছিল বিজয়ী বীর বাঙালিদের সামনে। স্বাক্ষর করেছিলো পরাজয় সনদে। পৃথিবীর মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটেছিল স্বাধীন এক বাংলাদেশ।

৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগ, ২ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত এই বিজয়ের দিনে শুধু আনন্দ নয়, সেইসঙ্গে বেদনাও বাজবে বহু বাঙালির বুকে। বিনম্র শ্রদ্ধা ও গভীর কৃতজ্ঞতায় জাতি স্মরণ করবে জানা-অজানা সেসব বীর শহীদদের। যাঁদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার সুফল ভোগ করে পেরিয়ে চলেছে বছরের পর বছর। তবে যারা সেই সংগ্রামের উত্তাল দিনে জাতির সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছিল ও হাত মিলিয়েছিল ঘাতক পাকিস্তানী সেনাদের সঙ্গে। সেইসব রাজাকার-আলবদরদের বিচার না করার কলঙ্ক যেনো অনেকটাই ম্লান করেছিল জাতির এই শ্রেষ্ঠ অর্জনটিকে। তবে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসে একের পর এক সেইসব আলবদর আল শামস্ দের বিচার করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করছেন।

যুদ্ধাপরাধী কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকরের মাধ্যদিয়ে সেই কলঙ্কের দায় মুক্তির সূচনা ঘটেছিলো। এরপর এ বছর আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীসহ একাধিক রাজাকারের ফাঁসি কার্যকরের মাধ্যমে শহীদদের আত্মার শান্তি হয়েছে। তাই জাতির বিজয়ের আনন্দে যুক্ত হয়েছে আজ নতুন এক মাত্রা।

আজ সকাল হতেই সারাদেশে পথে নামবে উৎসবমুখর মানুষ। শহীদদের স্মরণ করে বিনম্র শ্রদ্ধায় দেশের সব স্মৃতিসৌধ ভরে যাবে ফুলে ফুলে। রাজধানীতে সব বয়সী অগণিত মানুষ সমবেত হবেন সভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধ ময়দানে। শ্রদ্ধার ফুলে ঢেকে যাবে স্মৃতি সৌধের পবিত্র বেদি।

আজ লাল-সবুজ পতাকা উড়বে বাড়িতে ও গড়িতে, এমন কি সব প্রতিষ্ঠানেও। মাথায় থাকবে পতাকার রঙে রাঙা ফিতা, আঁকা হবে জাতীয় পতাকার প্রতিকৃতি। পতাকায় সজ্জিত করা হবে রাজধানীসহ দেশের বড় সব শহরগুলোর প্রধান প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপগুলো। আজ সরকারি ছুটির দিন। রাতে গুরুত্বপূর্ণ ভবনগুলোতে করা হবে আলোকসজ্জা। হাসপাতাল, শিশুসদন ও কারাগারগুলোতে পরিবেশন করা হবে বিশেষ খাবার। দেশের মসজিদ, গীর্জাসহ সব উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনাও করা হবে।


সতর্কবার্তা:

বিনা অনুমতিতে দি ঢাকা টাইমস্‌ - এর কন্টেন্ট ব্যবহার আইনগত অপরাধ, যে কোন ধরনের কপি-পেস্ট কঠোরভাবে নিষিদ্ধ, এবং কপিরাইট আইনে বিচার যোগ্য!

December 16, 2016 তারিখে প্রকাশিত

আপনার মতামত জানান -

Loading Facebook Comments ...

মন্তব্য লিখতে লগইন করুন

আপনি হয়তো নিচের লেখাগুলোও পছন্দ করবেন

চাঞ্চল্যকর নারায়ণগঞ্জের ৭ খুন: ২৬ আসামির ফাঁসির আদেশ
বিশ্ব ইজতেমা: প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত আজ
আকাশে ১৪৯ জন যাত্রীর শ্বাসরুদ্ধকর ৫ ঘণ্টার যাত্রা!
ভারতে ট্যুরিস্ট ভিসার আবেদনে এখন থেকে আর ই-টোকেন লাগবে না
দরকারি জিনিসের অজানা ভাণ্ডার সম্পর্কে জানুন!
শীঘ্রই ই-টোকেন পদ্ধতি বাতিল হচ্ছে: ভারতীয় হাই কমিশনার
আজ নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমদের জন্মদিন
মুক্তিযোদ্ধার সংজ্ঞার প্রজ্ঞাপন জারি: মুক্তিযোদ্ধার ন্যূনতম বয়স ১৩ বছর নির্ধারণ
এবার স্যালুট জানালেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাট!
ব্র্যাক ম্যানথন ডিজিটাল ইনোভিশন অ্যাওয়ার্ড ২০১৬-এ সন্মাননা পেলো দি ঢাকা টাইমস্
দি ঢাকা টাইমস্ ব্র্যাক ম্যানথন ডিজিটাল ইনোভিশন অ্যাওয়ার্ডে মনোনিত
কুড়িগ্রামে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সৈয়দ শামসুল হক
Close You have to login

Login With Facebook
Facility of Account